অনলাইনে অর্থ উপার্জনের 10টি প্রমাণিত উপায়

আজকের এই ব্লক পোস্টে আমরা জানব টাকা কামানোর দশটি পথ ৷

অনলাইনে অর্থ উপার্জনের 10টি প্রমাণিত উপায় নিয়ে একটি পোস্ট লেখা কিছু কোষ্টকর নয়। এটি কয়েকটি পদক্ষেপের মাধ্যমে সম্ভব।

1. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং: এটি একটি প্রমাণিত উপায় যা কম খরচে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের সহজ এবং দ্রুত পদ্ধতি।
অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কাকে বলে:-
অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হলো এমন একটি ব্যবসায়িক মডেল যেখানে আপনি অন্যদের পণ্য বা সেবা প্রচার করে তাদের বিপণনে সাহায্য করেন এবং সে প্রতি বিক্রয়ের সময় কিছু কমিশন পান।
অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে কি লাগবে:-
অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য আপনার একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ থাকা উচিত। আপনি এই ওয়েবসাইটে প্রতিষ্ঠানগুলির পণ্য বা সেবা সম্পর্কে তথ্য ও সমীক্ষা লিখতে পারেন এবং সেখান থেকে প্রতিষ্ঠানের প্রোডাক্ট লিঙ্ক যোগ করতে পারেন। যদি কোন ব্যক্তি আপনার ওয়েবসাইট থেকে ওয়েবসাইটে ক্লিক করে প্রোডাক্ট কেনার ক্ষেত্রে, তাহলে আপনি কিছু কমিশন পাবেন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে ইনকাম করার জন্য নিম্নলিখিত পদক্ষেপ অনুসরণ করা উচিত:

i. নিচ নির্বাচন করুন: যেসব পণ্য বা সেবা আপনি বিজ্ঞাপন করতে চান তা আপনার নিচ থেকে সংগ্রহ করুন।
ii. গুণগত ও ব্যক্তিগত সমীক্ষা লিখুন: আপনার ওয়েবসাইটে প্রোডাক্ট সম্পর্কে গুণগত ও ব্যক্তিগত সমীক্ষা লিখুন যাতে আপনার পাঠকদের সঠিক তথ্য প্রদান করা যায়।
iii. প্রমোট করুন: আপনার ওয়েবসাইট ও সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে প্রোডাক্ট প্রমোট করুন।
iv. লিংক অ্যাফিলিয়েট করুন: প্রতিটি প্রোডাক্টের সাথে আপনার অ্যাফিলিয়েট লিংক যুক্ত করুন যাতে আপনি ক্লিক পাবেন।
V. ট্র্যাক এবং পরিস্থিতি নজর রাখুন: আপনার কোন প্রোডাক্ট কোন কোন কারণে বেশি বিক্রি হচ্ছে তা বোঝার জন্য আপনি ট্র্যাকিং সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারেন।

এভাবে আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে সহজেই অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন।


2. ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করুন: একটি সাইট বা ব্লগ তৈরি করে আপনি বিজ্ঞাপন, স্বেচ্ছাসেবক, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ইত্যাদি থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। 
ওয়েবসাইট বা ব্লগ কাকে বলে 
ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করা হলো একটি অনলাইন প্রেসেন্স তৈরি করার মাধ্যমে যেখানে আপনি আপনার ইচ্ছামত বিষয়ে লেখা বা তথ্য শেয়ার করতে পারবেন। নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি মাধ্যমে আপনি কিভাবে একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করতে পারেন:
ওয়েবসাইট বা ব্লগ কিভাবে  তৈরি করবেন 
1. নির্ধারণ করুন আপনি কোন প্লাটফর্মে ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করতে চান: প্লাটফর্ম হিসেবে WordPress, Blogger, Wix, ইত্যাদি বিকল্পগুলি আছে।
2. নির্ধারণ করুন আপনার ডোমেইন নাম: এটি আপনার ওয়েবসাইটের URL হিসেবে ব্যবহার করা হবে।
3. হোস্টিং সেবা নিন: হোস্টিং কোম্পানি হলো আপনার ওয়েবসাইটের ফাইলগুলি সংরক্ষণ করার জন্য স্থান প্রদান করে।
4. ডিজাইন করুন আপনার ওয়েবসাইট: এটি সহজ ওয়েবসাইট বিল্ডার ব্যবহার করে বা পেশাদার ওয়েবডেভেলপার অংশ করে অন্যান্য মাধ্যমে করা যেতে পারে।
5. উপযুক্ত কন্টেন্ট তৈরি করুন: আপনার ওয়েবসাইটের জন্য আকর্ষণীয় এবং গুণমানের কন্টেন্ট তৈরি করুন যাতে আপনার পাঠকরা আপনার ওয়েবসাইটে আসতে আগ্রহী হন।
6. প্রচার করুন আপনার ওয়েবসাইট: সামাজিক মাধ্যম, ইমেল মার্কেটিং, SEO, ইত্যাদি ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইটের প্রচার করুন।
ওয়েবসাইট বা ব্লগে কিভাবে ইনকাম হবে 
ইনকাম প্রাপ্তির জন্য আপনি আপনার ওয়েবসাইটের থেকে বিজ্ঞাপন, স্বেচ্ছাসেবক, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, স্বল্প কাজ, সার্ভিস বা পন্য বিক্রয়, মেম্বারশিপ সাইট, ইত্যাদি থেকে ইনকাম করতে পারেন।

3. ই-কমার্স বা বিক্রয় প্ল্যাটফর্মে পন্য বিক্রয় করুন: বিক্রয় প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে আপনি অনলাইনে পন্য বিক্রয় করতে পারেন। 
ই-কমার্স বা বিক্রয় প্ল্যাটফর্ম কি
ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম বা বিক্রয় প্ল্যাটফর্ম হলো অনলাইনে পন্য বিক্রয় করার জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম যেখানে বিক্রেতারা তাদের পন্য সরবরাহ করতে পারেন এবং ক্রেতাদের তা অর্ডার করতে পারেন।
ই-কমার্স বা বিক্রয় প্ল্যাটফর্মে কিভাবে করবেন 
আপনি একটি ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে পন্য বিক্রয় করতে পারেন নিম্নলিখিত পদক্ষেপ গুলি অনুসরণ করে:

1. **প্রোডাক্ট চয়ন করুন:** আপনার ব্যবসার জন্য সঠিক পন্য নির্বাচন করুন যেটি আপনি অনলাইনে বিক্রি করতে চান।
2. **ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম নির্বাচন করুন:** পণ্য বিক্রয় করার জন্য প্রয়োজনীয় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম নির্বাচন করুন, যেমন Shopify, WooCommerce, ইত্যাদি।
3. **আপনার পন্য তৈরি করুন:** পন্য ছবি, বিবরণ, মূল্য ইত্যাদি সহ আপনার পন্য তৈরি করুন।
4. **অনলাইনে পন্য তৈরি করুন:** আপনার ই-কমার্স স্টোরে পন্য আপলোড করুন।
5. **বিপণন করুন:** আপনার পন্যের জন্য ঠিক বিপণন করুন যাতে আরও ক্রেতা আপনার স্টোরে আসেন।
6. **অর্ডার প্রক্রিয়াজাতকরণ:** ক্রেতাদের অর্ডার গ্রহণ করুন এবং তাদের পন্য প্রেরণ করুন।
7. **গ্রাহক সেবা:** গ্রাহকদের সম্পর্কে যত্ন নিন এবং তাদের প্রশ্ন ও সমস্যা সমাধান করুন।
8. **অর্ডার পরিষ্কার:** ক্রেতাদের অর্ডার পরিষ্কার করুন এবং তাদের পন্য প্রেরণ করুন।
9. **অর্থ উপার্জন:** আপনি অর্থ উপার্জন করার জন্য প্রতি বিক্রয়ে কিছু কর্তৃপক্ষের সংগ্রহ নিন।
10. **স্থিতিশীলতা মনিটরিং:** আপনার ব্যবসা স্থিতিশীলতা মনিটর করুন এবং প্রয়োজনে পরিবর্তন করুন।
ই-কমার্স বা বিক্রয় প্ল্যাটফর্ম ইনকাম 
ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে পন্য বিক্রয় করে আপনি সহজেই অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন। আপনি প্রতি বিক্রয়ের জন্য কিছু কর্তৃপক্ষের সংগ্রহ নিতে পারেন এবং অন্যান্য মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।

4. স্বেচ্ছাসেবক: আপনি ওয়েবসাইটে সম্প্রতি একটি বিজ্ঞাপন অনুবাদ করে এটি শেয়ার করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। 

5. অনলাইন শিক্ষা: আপনি অনলাইনে শিক্ষার্থীদের জন্য পাঠ্যমালা তৈরি করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। 

অনলাইন শিক্ষা হলো ইন্টারনেটের মাধ্যমে পড়াশোনা করা। এটি সাধারণত ভিডিও লেকচার, ওয়েবসাইট, এবং অনলাইন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে প্রদান করা হয়। অনলাইন শিক্ষা করার জন্য আপনি প্রথমে একটি শিক্ষার লক্ষ্য নির্ধারণ করতে হবে এবং তারপরে একটি কোর্স নিবন্ধন করতে পারেন। কিছু কোর্স বা পাঠ্যমালা ফ্রি হতে পারে এবং কিছু টাকা দিয়ে কিনতে হতে পারে।

অনলাইনে শিক্ষা করার একটি সুবিধা হলো তা আপনার সময় এবং অনুমান অনুযায়ী অনুষ্ঠান করা যাবে। আপনি নিজের সময়ের অনুমান অনুযায়ী কোর্স শেখার সময় নির্ধারণ করতে পারেন এবং প্রয়োজনে কোর্সগুলি অনুপ্রাণিত করতে পারেন।

অনলাইনে ইনকাম করার একটি উপায় হলো অনলাইনে শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে টিউশন দেওয়া। আপনি নিজের জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা ভিত্তিক কোর্স তৈরি করতে পারেন এবং অনলাইনে প্ল্যাটফর্মগুলিতে তা প্রকাশ করতে পারেন। আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে মূল্য নির্ধারণ করতে পারেন এবং ইনকাম করতে পারেন।

অনলাইনে শিক্ষা করার জন্য আপনার কিছু পদক্ষেপ অনুসরণ করতে হবে:

1. **লক্ষ্য নির্ধারণ**: প্রথমে নিজের লক্ষ্য নির্ধারণ করুন। আপনি কি শিখতে চান এবং কেন শিখতে চান তা নির্ধারণ করুন।

2. **কোর্স বা পাঠ্যমালা নির্বাচন**: একবার লক্ষ্য নির্ধারণ করার পর, একটি কোর্স বা পাঠ্যমালা নির্বাচন করুন যা আপনার লক্ষ্যে সাহায্য করতে পারে।

3. **শিখুন এবং অনুশীলন করুন**: কোর্স নিবন্ধন করার পর, শেখা শুরু করুন এবং প্রত্যেক অধ্যায়ের পরে অনুশীলন করুন।

4. **ইনকাম উপার্জন**: আপনি অনলাইনে ইনকাম করার জন্য আপনি শিখানো জ্ঞান দিয়ে অনলাইনে টিউশন দিতে পারেন, কোর্স বিক্রি করতে পারেন, ই-বুক লেখতে পারেন এবং অন্যান্য উপায়ে ইনকাম করতে পারেন।

অনলাইনে শিক্ষা করতে শুরু করার জন্য আপনি আগে নিজের লক্ষ্য নির্ধারণ করতে পারেন। এরপরে আপনি ইচ্ছামতো কোর্স নিবন্ধন করতে পারেন এবং এগুলি অনুষ্ঠান করতে পারেন। শেষে, আপনি ইনকাম উপার্জন করতে পারেন অনলাইনে শিক্ষা দিয়ে বা অনলাইনে শিখানো জ্ঞান বিক্রি করে।

আপনি যদি অনলাইনে শিক্ষা দিতে চান তবে প্রথমে আপনার শিক্ষার ক্ষেত্র নির্ধারণ করুন। এরপরে, নিজের দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা ভিত্তিক কোর্স তৈরি করুন এবং অনলাইনে এটি প্রকাশ করুন। আপনি এই কোর্সগুলি বিক্রি করে ইনকাম উপার্জন করতে পারেন। এছাড়াও, অনলাইনে টিউশন দেওয়ার সুযোগ থাকতে পারে।

অনলাইনে শিক্ষা দেওয়ার জন্য আপনি আগে নিজের লক্ষ্য নির্ধারণ করতে পারেন। তারপরে, আপনি নিজের দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা ভিত্তিক একটি কোর্স তৈরি করতে পারেন এবং এটি অনলাইনে প্রকাশ করতে পারেন। আপনি এই কোর্সগুলি বিক্রি করে ইনকাম উপার্জন করতে পারেন। এছাড়াও, অনলাইনে টিউশন দেওয়ার সুযোগ থাকতে পারে।

6. ফ্রিল্যান্সিং: ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে আপনি কাজ পেতে পারেন এবং অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।
ফ্রিল্যান্সিং কি
ফ্রিল্যান্সিং হলো নিয়োগকারী প্রতি কাজ পূরণের জন্য স্বায়ত্তশাসিত একটি ক্ষেত্র, যেখানে কাজের মূল্য আপনি নির্ধারণ করতে পারেন। এটি একটি স্বাধীন ও সময় সুযোগপূর্ণ কর্মধারা যেখানে আপনি নিজের স্বাধীনতা বজায় রাখতে পারেন। ফ্রিল্যান্সার হিসাবে আপনি বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে (উদাহরণস্বরূপ Fiverr, Upwork, Freelancer ইত্যাদি) রেজিস্টার করে নিজের প্রোফাইল তৈরি করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে করবেন:

১. নিজের ক্ষমতা অনুযায়ী কাজ নিবেন।
২. আপনার কাজের পরিমাণ এবং মান বজায় রাখতে হবে।
৩. ক্রমাগত আপনার ক্ষমতা উন্নত করতে থাকবেন।
৪. ক্লায়েন্টের সাথে ভাল সম্পর্ক গড়তে হবে।
৫. প্রতিদিন সঠিক সময় নিয়ে কাজ করতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং থেকে ইনকাম হবে যদি আপনি নিয়মিত এবং কাজের মান বজায় রেখেন। প্রথমে অধিক মূল্যের কাজ পাওয়া একটি কঠিন কাজ হতে পারে, তবে সঠিক প্রশিক্ষণ এবং প্রতিবেশী সাথে যোগাযোগ করে আপনি প্রতিদিন আপনার উপার্জন বাড়াতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য নিচের ধাপগুলি অনুসরণ করা যেতে পারে:

I. **নিচের লিঙ্ক থেকে একাউন্ট খুলুন**: Fiverr, Upwork, Freelancer ইত্যাদি সাইটে যান এবং নিজের একাউন্ট খুলুন।
Ii. **প্রোফাইল তৈরি করুন**: একটি অসাধারণ প্রোফাইল তৈরি করুন যেখানে আপনার ক্ষমতা, দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা প্রকাশ করুন।
iii. **কাজের বিজ্ঞাপন করুন**: আপনার প্রোফাইলে আপনার যে ধরনের কাজ করতে আগ্রহী তা স্পষ্ট করার জন্য কাজের বিজ্ঞাপন করুন।
iv. **কাজে লাগান**: বিভিন্ন কাজের জন্য প্রস্তাবনা দিন এবং কাজ পেতে চেষ্টা করুন।
V. **দাম নির্ধারণ**: কাজের জন্য উচ্চ মূল্য নির্ধারণ করার চেষ্টা করুন, যেটা আপনার সময় এবং প্রয়োজনীয় শ্রম উপযুক্ত করে।
Vi. **সময় মেনে চলা**: আপনার কাজের জন্য নির্ধারিত সময় মেনে চলা গুরুত্বপূর্ণ।
Vii. **কাজের মান বজায় রাখা**: প্রতিটি কাজে উচ্চ মান বজায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ।
Viii. **ক্লায়েন্টের সঙ্গে যোগাযোগ ও সম্পর্ক গড়া**: ক্লায়েন্টের সাথে ভালো সম্পর্ক গড়া গুরুত্বপূর্ণ।
Ix. **প্রশিক্ষণ এবং উন্নতি**: নিয়মিত প্রশিক্ষণ এবং আপনার ক্ষমতা উন্নত করার চেষ্টা করুন।
X. **সুযোগ থাকলে কাজ প্রসারণ**: ক্লায়েন্টের সাথে ভাল সম্পর্ক গড়তে পারলে, তাদের থেকে আরও কাজ পেতে পারেন।
7. ই-বুক লেখা: আপনি ই-বুক লেখে বা প্রকাশ করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।
ই-বুক কি 
ই-বুক হলো ইলেকট্রনিক বই, যা আপনি অনলাইনে লেখতে এবং প্রকাশ করতে পারেন। ই-বুক লেখার জন্য আপনার একটি ইডিয়া থাকতে হবে এবং তা রচনা করার জন্য কয়েকটি প্ল্যাটফর্ম রয়েছে যেখানে আপনি ই-বুক লেখতে এবং প্রকাশ করতে পারেন।

ই-বুক লেখার পরে আপনি তা প্রকাশ করতে পারেন মূল্য নিয়ে বা মুফতে। আপনি যদি ই-বুক প্রকাশ করেন মূল্য নিতে চান তবে এটি আপনার ইনকামের একটি উপায় হতে পারে। অন্যদিকে, আপনি যদি এটি মুফতে প্রকাশ করেন তাহলে এটি আপনার সৎ পাঠকদের সাথে যোগাযোগের একটি উপায় হতে পারে এবং আপনি অন্যান্য উদ্যোক্তাদের প্রচার করার সুযোগ পাবেন।
ই-বুক  থেকে কিভাবে ইনকাম হবে 
ই-বুক লেখার পরে আপনি ই-বুকটি প্রকাশ করার পরিবর্তে অনলাইনে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে বিজ্ঞাপন, স্বেচ্ছাসেবক, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, পেইড প্রোমোশন ইত্যাদি ব্যবহার করে ইনকাম করতে পারেন।

8. ভিডিও সংযোজন করুন: ইউটিউব বা অন্যান্য প্ল্যাটফর্মে ভিডিও তৈরি করুন এবং এগুলি শেয়ার করে অর্থ উপার্জন করুন। 

ভিডিও তৈরি করার জন্য প্রথমে আপনার পছন্দের একটি ভিডিও সম্পাদনা করার সফটওয়্যার বেছে নিতে হবে। এটির মধ্যে কিছু জনপ্রিয় সফটওয়্যার হতে পারে Adobe Premiere Pro, Final Cut Pro, বা মুক্ত সফটওয়্যার হিসেবে Shotcut, DaVinci Resolve ইত্যাদি।

ভিডিও তৈরি করার পরে, আপনি ভিডিওটি আপলোড করতে পারেন ইউটিউব, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইচ ইত্যাদি প্ল্যাটফর্মে।

ভিডিও থেকে ইনকাম করার বিভিন্ন উপায় রয়েছে:
i. **বিজ্ঞাপন ইনকাম**: আপনি আপনার ভিডিওতে ইনস্ট্রিমেন্টাল ইনস্ট্রাকশন অথবা প্রোডাক্ট রিভিউ এর মধ্যে বিজ্ঞাপন দিয়ে ইনকাম করতে পারেন।
ii. **স্পন্সরশিপ**: বিভিন্ন কোম্পানির পণ্য বা সেবা নিয়ে ভিডিও তৈরি করে তাদের প্রচার করতে পারেন এবং তাদের কাছ থেকে টাকা পাবেন।
iii. **এফিলিয়েট মার্কেটিং**: ভিডিওর বর্ণনায় পণ্যের লিংক দিয়ে যদি কেউ পণ্য কেনে, তাহলে আপনি কিছু কমিশন পাবেন।
iv. **চ্যানেল সাবস্ক্রিপশন**: ইউটিউব পার্টনারশীপ প্রোগ্রামে থাকলে, চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার বেশি থাকলে ইনকাম হতে পারে।
V. **পেট্রেণ সাপোর্ট**: ভিডিও তৈরি করার জন্য আপনি পেট্রেণ সাপোর্ট প্রদান করতে পারেন এবং তাদের থেকে টাকা পাবেন।

এই উপায়গুলি থেকে আপনি ইনকাম করতে পারেন ভিডিও তৈরি করে।

9. স্বল্প কাজ: কিছু সময়ের জন্য স্বল্প কাজ করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।
10. অনলাইন সার্ভে: আপনি অনলাইনে সার্ভেজ প্রদান করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

অনলাইন সার্ভে হলো এমন একটি পদ্ধতি যার মাধ্যমে আপনি ইন্টারনেটের মাধ্যমে সেবা প্রদান করতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ, আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করে মানুষদের জন্য প্রোগ্রামিং শেখাতে পারেন, বা অনলাইনে শিক্ষার্থীদের জন্য লেকচার দিতে পারেন।

অনলাইন সার্ভে শুরু করার জন্য আপনাকে নিচের ধাপগুলি অনুসরণ করতে হবে:

1. নিচের আপনার অবস্থানে একটি সার্ভের ব্যবস্থা করুন।
2. একটি ওয়েবসাইট তৈরি করুন বা প্রদত্ত সেবার জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করুন।
3. আপনার পণ্য বা সেবা নিয়ে একটি প্রচারণা প্রণালী তৈরি করুন।
4. মার্কেটিং এবং প্রচারণা প্রণালী ব্যবহার করে আপনার সেবাটি মানুষদের পৌঁছে দিন।
5. সেবার জন্য মূল্য নির্ধারণ করুন এবং অতিরিক্ত অফার প্রদান করুন যেখানে প্রয়োজনে।

ইনকাম হবে এমন কিছু উপায়:

1. সার্ভিস ফি: আপনি যে সেবা প্রদান করছেন সেটির জন্য লোকদের থেকে মূল্য নেওয়া যায়।
2. স্বেচ্ছাসেবক: আপনি অনলাইন কোর্স তৈরি করে বিক্রি করতে পারেন এবং ইনকাম করতে পারেন।
3. বিজ্ঞাপন আয়: আপনি আপনার ওয়েবসাইটে বা সেবার প্ল্যাটফর্মে বিজ্ঞাপন প্রদান করে ইনকাম করতে পারেন।
4. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং: অন্যান্য পণ্য বা সেবার প্রচারে সাহায্য করার জন্য আপনি কমিশন পান যখন লোকরা আপনার পরামর্শ অনুসরণ করে কিনা।

এই উপায়গুলির মাধ্যমে আপনি অনলাইনে সহজেই অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন