প্রতিরূপী বস্তুবাদের মূল বক্তব্যগুলি কী?

প্রতিরূপী বস্তুবাদের মূল বক্তব্য

যে জ্ঞানতাত্ত্বিক মতবাদ অনুসারে আমরা বাহ্য জগতের যাবতীয় বস্তু বা বিষয়কে তার প্রতিরূপ তথা ধারণার মাধ্যমে জানি, তাকেই বলা হয় প্রতিরূপী বস্তুবাদ। প্রতিরূপী বস্তুবাদের অপর নাম বিজ্ঞানসম্মত বস্তুবাদ।
এই মতবাদটির প্রধান প্রবক্তা হলেন প্রখ্যাত অভিজ্ঞতাবাদী ব্রিটিশ দার্শনিক জন লক। প্রতিরূপী বস্তুবাদ তথা বিজ্ঞানসম্মত বস্তুবাদের মূল বক্তব্যগুলি হল-
প্রতিরূপী বস্তুবাদের মূল বক্তব্যগুলি কী?
প্রতিরূপী বস্তুবাদের মূল বক্তব্যগুলি কী?



বস্তুর জ্ঞাননিরপেক্ষতা

আমরা যে জগতে বসবাস করি, তা হল বস্তুজগৎ। বাহ্যজগতে বস্তুসমূহ স্বাধীন ও স্বতন্ত্রভাবে অস্তিত্বশীল। এই সমস্ত বস্তু কখনোই আমাদের জ্ঞানের ওপর নির্ভরশীল নয়। বরং এই সমস্ত বস্তু আছে বলেই আমরা সেগুলিকে পরোক্ষভাবে জানতে পারি।

পরোক্ষ বস্তুজ্ঞান

প্রতিরূপী বস্তুবাদ অনুযায়ী, আমরা বাহ্য বস্তুসমূহকে
কখনোই সরাসরিভাবে জানতে পারি না। সেগুলিকে আমরা জানি বস্তুর ধারণা বা প্রতিরূপের মাধ্যমে। তাই আমাদের বস্তুজ্ঞান হয় পরোক্ষভাবে। প্রথমে আমরা বস্তুর ধারণা বা প্রতিরূপকে জানি এবং তারপর সেগুলির মাধ্যমে আমরা পরোক্ষে বস্তুকে জানি।

বন্ধুগুণের স্বরূপ: 

বাহ্য জগতের বস্তুর গুণসমূহ বস্তুর ধারণা বা প্রতিরূপ
গঠন করে। বস্তুর গুণগুলি মূলত দু-প্রকারের-মুখ্য গুণ ও গৌণ গুণ। মুখ্য গুণগুলি বস্তুর সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এগুলিকে বস্তু থেকে কখনোই বিচ্ছিন্ন করা যায় না। কিন্তু গৌণ গুণগুলি হল আপেক্ষিক। এগুলিকে বস্তু থেকে সহজেই বিচ্ছিন্ন করা যায়। এই দু-প্রকারের গুণের সমন্বয়ে গঠিত হয় বস্তুর ধারণা, যার মাধ্যমে আমরা বস্তু সম্বন্ধে পরোক্ষ জ্ঞান লাভ করি। 

জ্ঞাতানিরপেক্ষ জ্ঞেয় বস্তুর স্বাধীন অস্তিত্ব

প্রতিরূপী বস্তুবাদে জ্ঞাতা ও জ্ঞেয় বস্তুর বাহ্যিক সম্পর্ককে স্বীকার করা হয়েছে। সেকারণেই দাবি করা হয় যে, জ্ঞাতা নিরপেক্ষভাবে অর্থাৎ জ্ঞাতাকে বাদ দিয়েও জ্ঞেয় বস্তুর স্বাধীন অস্তিত্ব আছে। বাহ্যিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে পারস্পরিকভাবে জ্ঞাতা ও জ্ঞেয় বস্তুর সম্পর্ক ছিন্ন হলেও তাদের অস্তিত্ব আদৌ বিনষ্ট হয় না।

বন্ধু সরাসরিভাবে অপ্রত্যক্ষ: 

প্রতিরূপী বস্তুবাদে আমরা আমাদের ইন্দ্রিয়ানুভবে সরাসরিভাবে যা লাভ করি, তা কখনোই বস্তু নয়; তা হল বস্তুর প্রতিরূপ বা ধারণা। এই প্রতিরূপ বা ধারণা হল জ্ঞানের কারণ; বস্তু কখনোই আমাদের প্রত্যক্ষে সরাসরিভাবে ধরা দেয় না।

জ্ঞানের সত্য ও মিথ্যার সম্ভাবনা: 

প্রতিরূপী বস্তুবাদ অনুসারে আমাদের জ্ঞান সত্যও হতে পারে, আবার মিথ্যাও হতে পারে। প্রতিরূপের সঙ্গে যদি বস্তুধর্মের সাদৃশ্য পরিলক্ষিত হয়, তবে তা সত্য হয়। আর প্রতিরূপের সঙ্গে যদি বস্তুধর্মের সাদৃশ্য পরিলক্ষিত না হয়, তবে তা মিথ্যারূপে গণ্য হয়।

মুখ্য ও গৌণ গুণের পার্থক্য: 

প্রতিরূপী বস্তুবাদে মুখ্য ও গৌণ গুণের মধ্যে পার্থক্য করা হয়েছে। মুখ্য গুণগুলি হল বস্তুগত এবং বস্তুর সঙ্গে অবিচ্ছেদ্য। কিন্তু গৌণ গুণগুলি হল মনোগত এবং সেগুলি বস্তুতে জ্ঞাতার মনের আরোপ মাত্র। মুখ্য ও গৌণ গুণের সমন্বয়ে গঠিত হয় ধারণা। এই ধারণাই হল বস্তুজ্ঞানের মূলভিত্তি। 

Read more

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন