সরল বস্তুবাদের মূল বক্তব্যগুলি কী? লক কীভাবে সরল বস্তুবাদের সমালোচনা করে তাঁর বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন?

সরল বস্তুবাদের মূল বক্তব্য

যে বস্তুবাদে গুণবিশিষ্ট বস্তুর জ্ঞাতার জ্ঞান নিরপেক্ষ স্বাধীন ও স্বতন্ত্র অস্তিত্বকে স্বীকার করে নেওয়া হয়, তাকে বলে সরল বস্তুবাদ। এই সরল বস্তুবাদকে লৌকিক বস্তুবাদ রূপেও অভিহিত করা হয়। সরল বস্তুবাদ হল বস্তুবাদের একটি অত্যন্ত সহজ সরল রূপ। সরল বস্তুবাদ অনুসারে দাবী করা হয় যে, বৈচিত্রপূর্ণ বাহ্যজগতের ভৌতবস্তুসমূহকে আমরা সরাসরিভাবে প্রত্যক্ষ করি এবং সেগুলি সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করি। সরল বস্তুবাদের মূল বক্তব্যগুলিকে এভাবেই উল্লেখ করা যায়—[1] বাহ্যজগতে বৈচিত্রপূর্ণ অসংখ্য বস্তুর অস্তিত্ব আছে, [2] বস্তুগুলির সঙ্গে বস্তুর ধর্ম ওতোপ্রোতভাবে জড়িত, [3] বাহ্যবস্তু মাত্রেই হল জ্ঞাতার মননিরপেক্ষ এবং [4] বাহ্যবস্তুর জ্ঞান সরাসরিভাবে লক্ষ্ম। 

লক কর্তৃক সরল বস্তুবাদের সমালোচনা


প্রখ্যাত অভিজ্ঞতাবাদী দার্শনিক জন লক সরল বস্তুবাদের কঠোর সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন যে, সরলবস্তুবাদ হল সাধারণ মানুষের স্থূল বিশ্বাসের উপর প্রতিষ্ঠিত একটি নির্বিচারমূলক মতবাদ। এরূপ মতবাদটির বিরুদ্ধে যেসকল অভিযোগ করা হয়, সেগুলি হল-

[1] ভ্রান্তপ্রত্যক্ষের ব্যাখ্যাহীনতা

সরল বস্তুবাদ কখনোই ভ্রান্ত প্রত্যক্ষের ব্যাখ্যা দিতে পারে না। কারণ, আমরা যদি বস্তুকে সরাসরিভাবেই জানতে পারি তাহলে ভ্রান্ত প্রত্যক্ষের বিষয়টি আসে কি করে? ভ্রান্ত প্রত্যক্ষের বিষয়⁶টি তাই এই মতবাদে অব্যাখ্যাতই থেকে যায়।

[2] স্বপ্নজ্ঞানের ব্যাখ্যাহীনতা

বিষয়ের অস্তিত্ব না থাকলে তার জ্ঞান কখনোই সম্ভব নয়। কিন্তু স্বপ্নে দৃষ্ট বিষয়ের কোনো স্বাধীন ও স্বতন্ত্র অস্তিত্ব থাকে না, তাহলে স্বপ্নের বিষয়টি কীভাবে উঠে আসতে পারে? এর কোনো সদুত্তর সরল বস্তুবাদীরা দিতে পারেন না।

[3] প্রত্যক্ষের সার্বিক মাপকাঠিহীনতা

সরাসরিভাবে প্রত্যক্ষের ক্ষেত্রে আমাদের সার্বিক কোনো মাপকাঠি নেই। কারণ আমাদের একই বস্তু বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে ভিন্ন ভিন্নভাবে প্রত্যক্ষিত হতে পারে। এর ফলে বস্তুর সরাসরি প্রত্যক্ষে কোনো সার্বিক মাপকাঠি থাকতে পারে না এবং বাহ্যবস্তুর সার্বিক জ্ঞান তাই অসম্ভব হয়ে পড়ে। 

লকের সিদ্ধান্ত


সরল বস্তুবাদের সমালোচনা করে লক দেখিয়েছেন যে, সরল বস্তুবাদ কখনোই যথার্থ ও অযথার্থ জ্ঞানের মধ্যে পার্থক্য করতে পারে না। কারণ, সমস্ত বিষয়ের জ্ঞান যদি সরাসরিভাবে পাওয়া যায়, তাহলে সব জ্ঞানই যথার্থ হতে বাধ্য। অযথার্থ জ্ঞান বলে তাই কোনো কিছুই থাকতে পারে না। কিন্তু এ কথা সত্য যে, আমাদের সমস্ত জ্ঞান কখনোই সবসময় যথার্থ হতে পারে না, অযথার্থ জ্ঞানও তাই থেকেই যায়। সেকারণেই লক সরল বস্তুবাদের সমালোচনা করে তাঁর প্রতিনিধিত্বমূলক বস্তুবাদের উপস্থাপনা করেছেন। যে মতবাদ বস্তুর মন-নিরপেক্ষ স্বাধীন ও স্বতন্ত্র অস্তিত্বকে স্বীকার করে নেয় এবং বস্তুর জ্ঞানকে সরাসরিভাবে পাওয়া যায় না, তা বস্তুর ধারণা বা প্রতিরূপের মাধ্যমেই পাওয়া যায় বলে দাবি করা হয়, তাকে বলে প্রতিরূপী বস্তুবাদ।
লকের মতে, আমাদের মন হল একটি স্বচ্ছ পর্দার মতো। মনের এই স্বচ্ছ পর্দার উপর অভিজ্ঞতার ফলে বস্তুর ছাপ বা ধারণা প্রতিফলিত হয়। এই সমস্ত ধারণাগুলির মাধ্যমেই আমরা বস্তুকে পরোক্ষভাবে জানতে পারি। অর্থাৎ, অভিজ্ঞতার ফলে বস্তুর মুখ্য ও গৌণ গুণগুলি ধারণার সৃষ্টি করে; এই সমস্ত ধারণাগুলি মনের স্বচ্ছ পর্দায় ভেসে ওঠে এবং বস্তু সম্পর্কে পরোক্ষ জ্ঞান দান করে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ