বাহ্যবস্তুর অস্তিত্ব খণ্ডনে বার্কলের যুক্তিগুলি কী?

বাহ্যবস্তুর অস্তিত্ব খণ্ডনে বার্কলের যুক্তি


জন লক প্রতিরূপী বস্তুবাদী হিসেবে বাহ্যবস্তুর অস্তিত্বকে স্বীকার করে নিয়েছেন। কিন্তু অভিজ্ঞতাবাদী দার্শনিক জর্জ বার্কলে বাহ্যবস্তু তথা জড়বস্তুর অস্তিত্বকে অস্বীকার করেছেন। তাঁর মতে, জড়বস্তু বলে কিছুই নেই। জড়বস্তুর অস্তিত্ব খণ্ডনে বার্কলের যুক্তিগুলি হল: 

জড়বস্তুর অস্তিত্বহীনতা: 
বার্কলে উল্লেখ করেন যে, আমাদের প্রত্যক্ষের
ওপরই সমস্ত বস্তুর অস্তিত্ব নির্ভরশীল। তাই, বাহ্যবস্তু তথা জড়বস্তুর স্বতন্ত্র ও স্বাধীন কোনো অস্তিত্ব নেই। জ্ঞাতার মনের ওপরই তা নির্ভরশীল।

ইন্দ্রিয় সংবেদনে বন্ধুর গুণ প্রত্যক্ষ: বার্কলে দাবি করেন যে, আমরা আমাদের ইন্দ্রিয় সংবেদন দ্বারা যা প্রত্যক্ষ করি, তা হল শুধুই বস্তুর গুণসমষ্টি, জড়বস্তু বা জড়দ্রব্য নয়। এই গুণসমূহের মাধ্যমেই আমরা বাহ্যবস্তুর অস্তিত্ব কল্পনা করি। সুতরাং, বাহ্যবস্তুর অস্তিত্ব কখনোই প্রমাণিত সত্য নয়, তা হল কল্পিত বিষয়।

কল্পিত ধারণা হিসেবে বস্তুর গুণ: বার্কলের মতে, আমরা যে-সমস্ত গুণকে প্রত্যক্ষ করি, তা হল আমাদের মনের ধারণা মাত্র। আমাদের মনের বাইরে এদের স্বতন্ত্র কোনো অস্তিত্ব নেই। সুতরাং, জড়জগতে দ্রব্যরূপী বস্তুর কোনো অস্তিত্বই নেই। যাকে আমরা বাহ্যবস্তুরূপে উল্লেখ করি, তা আমাদের মনের কল্পিত ধারণামাত্র।

পরিবর্তনশীলতায় বাহ্যবস্তুর অস্তিত্বহীনতা: বার্কলে দাবি করেন যে, বাহ্যবস্তুর যদি প্রকৃতই কোনো অস্তিত্ব থাকে, তা হলে তা সবার ক্ষেত্রেই সমভাবে প্রত্যক্ষিত হবে। কিন্তু বাহ্যবস্তুগুলি কখনোই সমান ও সার্বিকভাবে প্রত্যক্ষিত নয়। অর্থাৎ, সেগুলি কোনো কোনো সময় ছোটো, আবার কোনো কোনো সময় বড়ো মনে হয়। তাই এদের অস্তিত্ব অবশ্যই পরিবর্তনীয় এবং যার অস্তিত্ব সর্বদাই পরিবর্তনীয়রূপে গণ্য, তার প্রকৃত কোনো অস্তিত্ব থাকতে পারে না। সুতরাং, বাহ্যবস্তু তথা জড়বস্তুর কোনো অস্তিত্ব নেই।

জড়বস্তুর ধর্মহীনতা: বার্কলে দাবি করেন যে, জড়বস্তু অস্তিত্বশীল হলে, তার প্রত্যক্ষজ অথবা অপ্রত্যক্ষজ ধর্ম থাকবে। কিন্তু জড়বস্তুর কোনো প্রত্যক্ষজ বা অপ্রত্যক্ষজ ধর্মই নেই। সুতরাং তাঁর মতে, জড়বস্তুর কোনো অস্তিত্বই থাকতে পারে না।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ