কার্যকারণ সম্পর্কিত অবশ্যম্ভাবী বা প্রসক্তি মতবাদটি কতদূর গ্রহণযোগ্য?

কার্যকারণ সম্পর্কিত অবশ্যম্ভাবী বা প্রসক্তি মতবাদটির গ্রহণযোগ্যতা


বুদ্ধিবাদী দার্শনিকগণ দাবি করেন যে, কার্য ও কারণের মধ্যে একপ্রকার আবশ্যিক বা অনিবার্য সম্পর্ক বিদ্যমান। কার্য ও কারণের মধ্যে এই আবশ্যিক সম্বন্ধের স্বরূপ উল্লেখ করতে গিয়ে দার্শনিক ইউয়িং প্রসক্তি সম্বন্ধের উল্লেখ করেছেন। প্রসক্তি সম্বন্ধ অনুসারে যুক্তিবাক্য থেকে সিদ্ধান্তটি যেমন প্রসত্ত হয়, তেমনই কারণ থেকেও কার্যটি প্রসত্ত হয়। কিন্তু এই অনিবার্য বা প্রসক্তি সম্বন্ধের বিরুদ্ধে যেসকল অভিযোগগুলি উত্থাপিত হতে পারে-

[1] অনিবার্য বা প্রসক্তি সম্বন্ধ প্রত্যক্ষযোগ্য নয়: অভিজ্ঞতাবাদী দার্শনিকগণ দাবি করেন যে, কার্য ও কারণ নামক দুটি ঘটনাকে আমরা আমাদের অভিজ্ঞতায় প্রত্যক্ষ করে থাকি। কিন্তু তাদের অন্তঃস্থিত যে আবশ্যিক বা প্রসক্তি সম্পর্ক আছে বলে দাবি করা হয়, তাকে আমরা কখনোই অভিজ্ঞতার মাধ্যমে পাই না। সুতরাং প্রসক্তিমূলক কোনো অনিবার্যতাকে স্বীকার করা কখনোই সংগত নয়।

[2] অনিবার্য বা প্রসক্তি সম্পর্ক সার্বিক বলে গ্রহণযোগ্য নয়:

বুদ্ধিবাদী দার্শনিকগণ দাবি করেছেন যে, কারণ ও কার্যের মধ্যে আবশ্যিক সম্বন্ধটি হল সর্বকালীন। কিন্তু আমরা আমাদের অভিজ্ঞতায় যা পাই, তা কখনোই সর্বকালীন নয়। তা হল সমকালীন বিষয়। সুতরাং, আবশ্যিক সম্বন্ধটি সর্বকালীনরূপে গণ্য হওয়ায় তা কখনোই অভিজ্ঞতালব্ধ হতে পারে না। আর যা অভিজ্ঞতালব্ধ নয়, তাকে স্বীকার করার পক্ষে কোনো যুক্তিই নেই।

[3] কারণ ও কার্যের আবশ্যিকতা বাস্তবে অপ্রমাণিত: 

কারণ ও কার্যের মধ্যে যদি আবশ্যিকতা বা অনিবার্যতাকে স্বীকার করা হয়, তাহলে কারণকে কার্যের একটি আবশ্যিক শর্তরূপেও গণ্য করতে হয়। একটি বিশেষ শর্তের উপস্থিতি না হলে কার্যটি কখনোই ঘটে না। কিন্তু বাস্তবে এর অন্যথাও হতে পারে। যেমন-জলে ডোবা মৃত্যুর কারণরূপে গণ্য হতেই পারে। কিন্তু জলে না ডুবলেও যে অন্য কোনোভাবে মৃত্যু হতে পারে, তা বাস্তবে প্রমাণিত।

[4] কারণরূপে হেতুকে উল্লেখ করা অসংগত: 

বুদ্ধিবাদীরা কারণ ও কার্যের অনিবার্যতাকে প্রসক্তি সম্বন্ধের সঙ্গে তুলনা করেছেন। প্রসক্তি সম্বন্ধের ক্ষেত্রে আমরা হেতু বাক্য থেকে সিদ্ধান্তকে প্রতিষ্ঠা করি। কিন্তু হেতু আর কারণ কখনোই এক নয়। কারণ কোনো কোনো সময় হেতুরূপে গণ্য হলেও, সবসময় কিন্তু তা হয় না। সুতরাং অনিবার্য সম্বন্ধ মতবাদটি একপ্রকার অস্বচ্ছতার সৃষ্টি করেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ