সৌরশক্তি

সৌরশক্তি ধারণা: 


সূর্য থেকে নির্গত তাপ ও আলো থেকে যে শক্তি উৎপন্ন হয়, তাকে সৌরশক্তি বলে। সৌরশক্তি একটি প্রবহমান, পুনর্ভব প্রকৃতির সম্পদ।

সৌরশক্তি উৎপাদন পদ্ধতি: 


সৌরশক্তি উৎপাদনের জন্য অন্যতম উপাদান কাহল সৌরকোশ বা পিভি সেল। এই সৌরকোশে থাকে সিলিকন দ্বারা গঠিত সেমি-কনডাক্টর। একাধিক সেল একসঙ্গে মিলে যে প্যানেল গঠিত হয় তার সাহায্যে সৌররশ্মি তাপশক্তিতে ও তাপশক্তি বিদ্যুৎশক্তিতে পরিণত হয়।

সৌরশক্তি ব্যবহার: 


সৌরশক্তি নিম্নলিখিত বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়- (i) সৌরকোশের মাধ্যমে উৎপন্ন বিদ্যুতের সাহায্যে পাখা, রেডিয়ো, টিভি, পাম্প চালানো ও রাস্তায় আলো জ্বালানো যায়।
(ii) শীতল অঞ্চলে ঘর উন্ন রাখতে ও জল গরম করতে সৌরহিটার ব্যবহৃত হয়। (iii) সৌর কুকার-এর প্রতিফলকের সাহায্যে সৌরতাপের তীব্রতা বৃদ্ধি করে রান্নার কাজ করা হয়। (iv) সৌরকোশের সাহায্যে বর্তমানে গাড়িও চালানো হচ্ছে। (v) সোলার ড্রায়ার-এর সাহায্যে ফসলের আর্দ্রতা দূর করা যায়। (vi) সৌরপুকুর-এর মাধ্যমে জলের তাপমাত্রা বৃদ্ধি করে শিল্প ও গৃহস্থালির বিভিন্ন প্রয়োজনে ওই গরম জল ব্যবহার করা যেতে পারে। পন্ডিচেরি, কণার্টক ও গুজরাটে এই ধরনের সৌরপুকুর বর্তমান। (vii) সোলার ওয়াটার হিটিং সিস্টেম-এ একটি তাপ সংগ্রাহকের সাহায্যে কোনো জলাধারে সম্ভিত জলের তাপমাত্রা 65°-88° সে. বৃদ্ধি করা সম্ভব। (viii) সোলার ডি-স্যালিনেশন প্রক্রিয়ায় সমুদ্রের লবণাক্ত জল থেকে পরিষ্কার পানীয় জল পাওয়া যায়। (ix) কাঠ শুকনো করার জন্য সোলার টিম্বার কিল্ ব্যবহার করা হয়। 

সৌরশক্তি-ভারত: সৌরশক্তি উৎপাদনে ভারত বর্তমানে পৃথিবীতে চতুর্থ স্থানের অধিকারী। 2022 খ্রিস্টাব্দের মধ্যে ভারতে প্রায় 100 GW সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করা হয়েছে। ভারতে সৌরশক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রধানত সৌরকোশ (সরাসরি বিদ্যুৎ উৎপাদন) ও সৌরতাপীয় পদ্ধতির (তাপশক্তি উৎপাদন ও প্রয়োগ) ব্যবহার লক্ষ করা যায়।

সৌরশক্তির গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য: ভারতে সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যগুলি হল-পশ্চিমবঙ্গঃ সাগরদ্বীপ, জামুরিয়া; উত্তরপ্রদেশ: কল্যাণপুর, মউ; গুজরাট: চারঙ্ক সৌরপার্ক; তামিলনাড়ুঃ শিবগঙ্গা সৌর প্ল্যান্ট, রাজস্থানঃ যোধপুর, পোখরান; উত্তরাখণ্ড, ওড়িশা প্রভৃতি। ভারতে প্রায় 7 লক্ষ সোলার কুকার ব্যবহৃত হচ্ছে। এক্ষেত্রে ভারতের স্থান পৃথিবীতে প্রথম। পৃথিবীর বৃহত্তম সোলার পুকুর গুজরাটের কচ্ছ উপদ্বীপে গড়ে তোলা হয়েছে। এখানে প্রায় 82000 লিটার জল প্রায় 73° সে. পর্যন্ত গরম করা যেতে পারে। এ ছাড়া ভারতে অসংখ্য শিল্পকন্দ্র ও গৃহস্থালিতে সোলার ওয়াটার হিটারের ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে। 

সৌরশক্তির সুবিধা: (i) সৌরশক্তি একটি প্রবহমান ও পুনর্ভব সম্পদ। (ii) এই শক্তি উৎপাদনের ক্ষেত্রে কোনো পৌনঃপুনিক ব্যয় প্রায় নেই। (iii) এই শক্তি পরিবেশ-বান্ধব প্রকৃতির। (iv) মেঘাচ্ছন্নতা থাকলেও প্রয়োজনীয় সৌরশক্তি উৎপাদন করা সম্ভব। (v) সৌরশক্তি উৎপাদনের ক্ষেত্রে যথেষ্ট সহজ প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়।

সমস্যা: (i) এই শক্তি উৎপাদনের ক্ষেত্রে উৎপাদন ব্যয় তুলনামূলক অনেকটাই বেশি। (ii) বৃহৎ মাত্রায় উৎপাদন করা সম্ভব হয় না। (iii) মেরু ও শীতল নাতিশীতোয় অঞ্চলে অথবা একটানা বৃষ্টিপাত চললে সৌরশক্তি উৎপাদন সম্ভব হয় না। (iv) সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র গঠনের উপযোগী বিস্তৃত জমির অভাব লক্ষ করা যায়। (v) পৃথিবীর বহু অনুন্নত দেশে সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য প্রয়োজনীয় কারিগরি কৌশলের অভাব রয়েছে। (vi) সৌরকোশ তৈরির পদ্ধতি অত্যন্ত ব্যয়বহুল।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ